যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২২

৪টি পদে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২২ঃ যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে ৪টি পদে নতুন এক নিয়োগ সার্কুলার প্রকাশ হয়েছে। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের নিম্নোক্ত শূন্য পদসমূহ সরাসরি নিয়োগের মাধ্যমে পূরণের জন্য বাংলাদেশের স্থায়ী নাগরিকগণের নিকট হতে অন-লাইনে নির্ধারিত ফরমে দরখাস্ত আহবান করা যাচ্ছে।

  • চাকরির ধরনঃ সরকারি
  • আবেদনযোগ্য জেলাঃ পদের পাশে উল্লেখিত জেলা
  • চাকরি দাতা প্রতিষ্ঠানঃ যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়
  • অফিসিয়াল সাইটঃ https://moysports.gov.bd
  • খালিপদঃ ০২টি
  • পদের সংখ্যাঃ ০৪ জন
  • বয়সসীমাঃ ১৮-৩০ বছর
  • আবশ্যিক শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ স্নাতক/এসএসসি
  • আবেদনের শেষ সময়ঃ ৩১/১০/২০২১
  • আবেদনের করা যাবেঃ অনলাইনে

যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে নিয়োগ ২০২২

শূণ্যপদঃ সাঁটমুদ্রাক্ষরিক
পদের সংখ্যাঃ ০১ জন
শিক্ষাগত ও অন্যান্য যোগ্যতাঃ
স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় হতে স্নাতক ও কম্পিউটার প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত। সাঁটলিপিতে গতি প্রতি মিনিটে বাংলায় 8৫ শব্দ ও ইংরেজিতে ৭০ শব্দ।
বেতন স্কেলঃ
১১০০০-২৬৫৯০ টাকা

শূণ্যপদঃ অফিস সহায়ক
পদের সংখ্যাঃ ০৩ জন
শিক্ষাগত ও অন্যান্য যোগ্যতাঃ
স্বীকৃত বোর্ড হতে কমপক্ষে এসএসসি পাশ।
বেতন স্কেলঃ
৮২০০-২০০১০ টাকা

৪টি পদে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১
যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে চাকরি

আবেদন করার নিয়মাবলি ও শর্তাবলি

প্রার্থী অনলাইনে পূরণকৃত আবেদনপত্রের একটি রঙ্গিন প্রিন্ট কপি পরীক্ষা সংক্রান্ত যে কোন প্রয়োজনের সহায়ক হিসেবে সংরক্ষণ করবেন।

২৫/০৩/২০২০ পর্যন্ত প্রার্থীদের সর্বোচ্চ বয়সসীমা এবং ৩১/১০/২০২১ তারিখ পর্যন্ত প্রার্থীদের সর্বনিম্ন বয়সসীমা নির্ধারিত হবে। সাধারণ প্রার্থীদের সর্বোচ্চ ও সর্বনিয় বয়সসীমা ১৮-৩০ বছর।

মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ মুক্তিযোদ্ধার পুত্র-কন্যা এবং শারীরিক প্রতিবন্ধীর ক্ষেত্রে বয়সসীমা ১৮-৩২ বছর।

আবেদনকারী যদি কোন তথ্য গোপন করে এবং পরবর্তীতে তা শনাক্ত হয় সেক্ষেত্রে আইনানুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে এবং নিয়োগাদেশ বাতিল করা হবে। নিয়োগের ক্ষেত্রে সরকারের বিদ্যমান বিধি-বিধান ও কোটানীতি এবং পরবর্তীতে সংশ্লিষ্ট বিধি- বিধানে কোনরূপ সংশোধন হলে তা অনুসরণ করা হবে।

বিভাগীয় প্রার্থীদের ক্ষেত্রে বয়সসীমা ৪০ বছর পর্যন্ত শিথিলযোগ্য। উল্লেখ্য, বাংলাদেশ সচিবালয় ক্যাডার বহির্ভূত গেজেটেড কর্মকর্তা এবং নন-গেজেটেড কর্মচারী নিয়োগ বিধিমালা, ২০১৪ অনুযায়ী নিয়োগপ্রাপ্ত বা নিয়োজিত কর্মচারীগণ বিভাগীয় প্রার্থী হিসেবে গণ্য হবেন।

চাকরিরত প্রার্থীদের যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে এবং উক্ত প্রার্থীদের মন্ত্রণালয়/বিভাগ/অধিদপ্তর/সংস্থার ছাড়পত্র সাক্ষাৎকারের সময় দাখিল করতে হবে। অন্যথায় সাক্ষাতকার গ্রহণ করা হবে না।

মৌখিক পরীক্ষার সময় আবেদনকারীকে-

  • (ক) শিক্ষাগত যোগ্যতার সকল সনদপত্র
  • (খ) ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান/পৌরসভা চেয়ারম্যান/সিটি কর্পোরেশনের কমিশনার/মেয়র কর্তৃক প্রদত্ত নাগরিকত্ব সনদপত্র
  • (গ) জাতীয় পরিচয়পত্র/জন্ম নিবন্ধনপত্রসহ প্রযোজ্য অন্যান্য সনদ/প্রত্যয়নপত্রের মূলকপি সাথে আনতে হবে।

তাছাড়া কোটাধারীদের উপযুক্ত কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রদত্ত সনদপত্র প্রদর্শন করতে হবে এবং আবেদনকারী মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ মুক্তিযোদ্ধার পুত্র-কন্যা, পুত্র-কন্যার পুত্র-কন্যা হলে আবেদনকারী যে মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ মুক্তিযোদ্ধার পুত্র-কন্যা, পুত্র- কন্যার পুত্র-কন্যা এ মর্মে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান/সিটি কর্পোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলর/ পৌরসভার মেয়র/পৌরসভার কাউন্সিলর কর্তৃক প্রদত্ত সনদপত্র দাখিল করতে হবে।

Leave a Comment